প্রথম অফিস

শুরুর দিকে সকলেই ছিলেন ছাত্র। থাকা হত আইইউটির হলগুলিতে। তখন ঠিক অফিশিয়াল পদ্ধতি অনুসরণ করে ক্লায়েন্ট ডিলিংস হত না। তারপর ’১২ এর শেষে যখন জোবায়ের শুভ ইঞ্জিনিয়ারিং পড়া শেষ করে বের হয়ে উত্তরার ১০ নং সেক্টরে আরও দুই বন্ধুর সাথে বাসা নিয়ে উঠলেন। ততদিনে বেশ কিছু ইভেন্টও আসা শুরু করেছে। মুসিবত হল, ক্লায়েন্টদের সাথে কথা বলার জন্য কিংবা এডভান্স নেবার জন্য দরকার পড়ে একটা অফিসের। সেই থেকেই ভাবনা শুরু। অফিস নিতে হবে। কিন্তু মূলধন নেই। নিরুপায় হয়ে সেই ভাড়া নেওয়া বাসার লিভিং রুমে করা হল ড্রীম উইভারের ছোট্ট অফিস। নাভানা থেকে আনা হল একটা বড় টেবিল, চেয়ার আর ফ্রেমে বাধিয়ে সুন্দর করে টানিয়ে রাখা হল তাদের তোলা বেশ কয়েকটি ছবি। পরবর্তীতে ক্লায়েন্টের চাপ বাড়ার সাথে সাথে অফিস বড় করার প্রয়োজন পড়ে। ততদিনে নাফিস আর ইমরানও বের হয়েছেন। তারা সহ থাকার মত সেক্টর ৯তে খোঁজ পাওয়া গেল ডুপ্লেক্স বাসাটির, ড্রীম উইভারের বর্তমান অফিসটির। ব্যাচেলর ভাড়া, আবার অফিস, ফটোগ্রাফি স্টুডিও, নানা ধরনের লোকজন আসবে এমন সব বাঁধা পেরিয়ে অতঃপর ঠিকানা হয় ড্রীম উইভারের বর্তমান অফিসের – উত্তরা, সেক্টর ৯, রোড নং ১, বাসা নং – ২৩!